Tuesday, June 25, 2024
spot_img
Homeজাতীয়মাননীয় প্রতিমন্ত্রী অফিসের সময় কমানো বিষয় যা বলেছে।

মাননীয় প্রতিমন্ত্রী অফিসের সময় কমানো বিষয় যা বলেছে।

জ্বালানি সাশ্রয়ে সরকারী অফিসের টাইম দুই ঘণ্টা কমিয়ে আনার ব্যাপারে প্রস্তাব থাকলেও এখনো  ব্যাপারে কোনো ডিসিশন হয়নি বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুসারে তড়িৎ সাশ্রয়ের প্রচেষ্টা নেওয়া হয়েছে। যদি আমরা দেখি যে, অনেক তড়িৎ সাশ্রয় হচ্ছে তাহলে কার্যালয় সময় কমানোর প্রয়োজন হবে না বলেই মনে করি। আর যদি নোটিশ যায় প্রচলিত উদ্যোগ কাজে আসতে চলেছে না, সেই সময় আমরা কার্যালয় টাইম পরিবর্তনসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেব।
ফরহাদ হোসেন বলেন, তড়িৎ সাশ্রয়ে সরকারি-বেসরকারি দফতর আদালতের সময়সূচিতে পরিবর্তন আনার প্রস্তাব করা হলেও বর্তমান পর্যন্ত  বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। পরিস্থিতি বুঝে অ্যারেঞ্জমেন্ট নেওয়া হবে। অধুনা পর্যন্ত যেভাবে দফতর ঘটছে সেভাবেই চলবে। কিন্তু অবস্থা কঠোর হলে তখন পরবর্তী স্টেপ নেওয়া হবে। আমাদের অর্থনৈতিক গতিশীলতার স্বার্থে কাজের গতি আমরা কমাতে প্রয়োজন না। কাজ চলবে, সাথে সাশ্রয়ীও হতে হবে।

তিনি বলেন, আমাদের টার্গেট হচ্ছে ২৫ শতাংশ তড়িৎ সাশ্রয় করা সেটি যদি কার্যালয় সময়সূচিতে পরিবর্তন না এনে অর্থাৎ সার্বক্ষণিক খোলা রেখে করা যায় তাতে তো কোনো সমস্যা নেই। যদি দেখা যায় বৈশ্বিক সিচুয়েশন এইরকম খারাপের দিকে যাচ্ছে তাহলে আমাদের আরও সাশ্রয়ী হতে হবে। সেই সময় পরিস্থিতি বুঝে আমরা কার্যালয় সময়সূচি কমিয়ে আনতে পারি। ভার্চুয়াল কার্যালয় চালু করতে পারি।প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের ইদানিং সতর্ক হওয়ার সময়  কেবল রাষ্ট্রীয় অবস্থায় কার্যালয় আইনজীবী কারেন্ট সাশ্রয় করলে হবে না, রাষ্ট্রের সবাইকে এই কাজ করতে হবে। আপনার বাসার প্রয়োজনের বেশি লাইট নিভিয়ে রাখতে হবে। সবার চেষ্টাতেই আমরা ঘাপলা কাটিয়ে উঠতে পারব।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী তার বিশ্রাম রুমের আলো বন্ধ থাকার দৃশ্য সাংবাদিকদের দেখান। প্রতিমন্ত্রী বলেন, শুধু সচিবদের নির্দেশনা নয়, দেশের সব পর্যায়ের অফিসারদের নির্দেশনা দেওয়া হবে। যাতে করে প্রত্যেকটি দপ্তরে বিদ্যুৎ সাশ্রয় করা হয়। সবাইকে সচেতন থেকে হবে। সতর্ক হতে হবে।ফরহাদ হোসেন আরও বলেন, আমরা প্রয়োজন সকল কাজ স্বাভাবিক রাখার জন্য যতক্ষণ পর্যন্ত রাখা যাবে ততক্ষণ পর্যন্ত স্বাভাবিক রাখব। পরে চাই হলে অ্যারেঞ্জমেন্ট নেব। মনে রাখতে হবে, টাইমের কাজ সময়ে করতে হবে। অসময়ে করলে হবে না।

‘সময়ের এক ফোঁড়, অসময়ের দশ ফোঁড়’ শীর্ষক প্রবাদের উদাহরণ কর্তৃক প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী সঠিক সময়ে মুল্যবান উদ্যোগ নিয়েছেন। আশা করি, এতে ভালো রেজাল্ট আসবে। কারণ সম্মুখে শীতকাল আছে। এই সমস্যায় আমাদের বেশিদিন থাকতে হবে না।

More news:

মিয়ানমারের আপত্তি খারিজ করলো আন্তর্জাতিক আদালত

রাশিয়া- ইউক্রেনের চুক্তি সই

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments